Wellcome to National Portal
আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
Text size A A A
Color C C C C

সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

জাতীয় আরকাইভসের সাধারণ তথ্য

বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস আইন, ২০২১:
বাংলাদেশ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ও স্থায়ী দলীল দস্তাবেজ সংগ্রহ, সংরক্ষণসহ দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য সংরক্ষণের উদ্দেশ্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ২০২১ সনে (২১ নং) জাতীয় আরকাইভস আইন জারি করে।

আন্তর্জাতিক সহযোগিতা:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস বিভিন্ আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্য। যথা:
১. Internatioanl council on Archives (ICA)
২. South and west Asian Regional Branch of the International council on Archives (SWARBICA)
রেকর্ডের ব্যবহার:

  • গবেষণা কক্ষে গবেষকদের সুবিধার জন্য সকল ধরনের নথির তালিকা, ক্যাটালগ ও ইনডেক্স ব্যবহারের ব্যবস্থা রয়েছে।
  • গবেষণা ও রেফারেন্স সেবা: বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস দেশী-বিদেশী গবেষকদের গবেষণা ও রেফারেন্স সেবা দিয়ে থাকে। গবেষকদের জাতীয় আরকাইভসে সংরক্ষিত/প্রাপ্ত সকল ধরনের উপাদান দিয়ে সহায়তা করা হয় ।

রেকর্ডের প্রবেশধিকার:

  • জাতীয় আরকাইভসে সংরক্ষিত নথিপত্র গবেষণা ও সাধারণ জনগণের গবেষণার জন্য উন্মুক্ত।
  • অত্যন্ত গোপনীয় বা জাতীয় নিরাপত্তার সাথে জড়িত নথিপত্রের ব্যবহার নথি সৃষ্টিকারী সংস্থার অনুমতি ছাড়া গবেষকদের দেয়া হয়না।

বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস ব্যবহারের সাধারণ নির্দেশিকা:

  • উপপরিচালক (আরকাইভস) কে দৃষ্টি আকর্ষণ করে পরিচালক বরাবর একটি আবেদনপত্র।
  • আবেদনপত্রের সাথে এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  •  সংস্থা বা বিভাগের প্রধানের প্রত্যয়ন পত্র।
  • জাতীয় পরিচয়পত্র বা সংস্থার পরিচয়পত্রের ফটোকপি।
  • পাসপোর্টের ফটোকপি (বিদেশী গবেষকদের জন্য)
  • অফিস বন্ধ হওয়ার কমেপক্ষে ১/২ ঘন্টা পূর্বে গবেষকদের চাহিদা পত্র দিতে হবে।
  • জাতীয় আরকাইভসের নির্দেশিকা মোতাবেক গবেষকদের ফটোকপি সেবা প্রদান করা হয়।

জাতীয় আরকাইভস উপদেষ্টা পরিষদ:
জাতীয় আরকাইভস আইন, ২০২১ অনুসারে বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসে একটি উপদেষ্টা পরিষদ রয়েছে। প্রতি তিন মাস অন্তর উপদেষ্টা পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত হয় । বর্তমান জাতীয় আরকাইভস উপদেষ্টা পরিষদ সরকার কর্তৃক ২০ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে পূর্ণগঠিত হয়।
সদস্য বৃন্দ:

ক্রমিক নং  সদস্যের নাম পদবি
সচিব, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকা। সভাপতি
ড. আবু মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অধ্যাপক, ইতিহাস বিভাগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা। 
সদস্য
ড. ইমরান হোসেন, অধ্যাপক, ইতিহাস বিভাগ, চট্রাগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় চট্রগ্রাম। সদস্য
জনাব আবুল কাশেম, অধ্যাপক ইতিহাস বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী। সদস্য
ড. মো: তাইবুল হাসান খান, অধ্যাপক, ইতিহাস বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, সাভার ঢাকা। সদস্য
প্রতিনিধি, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ  সদস্য
প্রতিনিধি, লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগ
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। 
সদস্য
প্রতিনিধি, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়   সদস্য
প্রতিনিধি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সদস্য
১০ প্রতিনিধি, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সদস্য
১১ প্রতিনিধি, শিক্ষা মন্ত্রণালয়   সদস্য
১২ উপসচিব (আধিশাখা:৪), সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সদস্য
১৩ মহাপরিচালক, আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর   সদস্য সচিব

জাদুঘর:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসে একটি Manuscript জাদুঘর রয়েছে।

প্রদর্শনী :
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসে একটি প্রদর্শনী কক্ষ রয়েছে; সেখানে দর্শনার্থী গবেষক/আরকাইভস ব্যবহারকারী এবং সাধারণ জনগণের জন্য দুষ্প্রাপ্য নথিপত্র প্রদর্শন করা হয়। বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দিবস উপলক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট নথিপত্র, পত্রিকা ও বই প্রদর্শনীর আয়োজন করে থাকে।

ওয়েবসাইট:
আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তরের নিজস্ব ওয়েবসাইট উন্মুক্তের অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়া শুধুমাত্র বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসের জন্য www.nab.gov.bd ওয়েবসাইটটি রয়েছে।

ফেসবুক:

https://www.facebook.com/nanlbd

সফটওয়্যার:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসের জন্য একটি কাস্টমাইজ সফটওয়্যার রয়েছে।

আধুনিক যন্ত্রপাতি:
বর্তমানে বাংলাদেশ জাতীয় অরকাইভসে নিম্নেবর্ণিত আধুনিক যন্ত্রপাতিসমূহ রয়েছে।  যথা:

  1. Server
  2. EMC storage 13TB
  3. HD AO Machine
  4. Microfilm Machine
  5. Book Scanner
  6. Copier Machine (for newspaper & Map)
  7. Modern computer and Laptop
  8. Hit Lamination Machine

জাতীয় আরকাইভস ভবন:
১৯৯৫ সালের একটি প্রজেক্টের মাধ্যমে জাতীয় আরকাইভস ভবন নির্মাণ কাজের সূচনা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ২০০৪ ও ২০১২ সালে যথাক্রমে ১ম পর্যায় ও ২য় পর্যায়ের কাজ শেষ হয়। বর্তমানে জাতীয় আরকাইভস ভবন নির্মান প্রকল্প (তৃতীয় পর্যায়) প্রক্রিয়াধীণ রয়েছে।

শাখা কার্যক্রম:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসের সব কারিগরি/পেশাগত কার্যক্রম জাতীয় আরকাইভস শাখার প্রধান উপপরিচালকের তত্ত্বাবধানে সম্পন্ন হয়ে থাকে।

জনশক্তি:
মোট বরাদ্দকৃত পদের সংখ্যা ৩৪ টি। অতিরিক্ত জনবল ও সংশেধিত অর্গানোগ্রামের একটি প্রস্তাব বর্তমানে সরকারের বিবেচনাধীন রয়েছে।

মোট সংগ্রহের পরিমান:
জাতীয় আরকাইভসের আনুমানিক সংখ্যা পরিমান প্রায় ০.৩ মিলিয়ন ফাইল।

সুবিধাভোগী:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসের সুবিধাভোগী হচ্ছেন- গবেষক, লেখক, সাহিত্যিক, প্রোফেশনাল, শিক্ষার্থী , সংস্কৃতি কর্মী, প্রশাসক, নীতি নিধারক, বুদ্ধিজীবি ও সাধারণ জনগণ। এছাড়া রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন বিভাগ।

আরকাইভসের নথিপত্র ডিজিটাইজেশন:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস কিছুদিন পুর্বেও শুধুমাত্র ধাতব নথিপত্র /ফিজিক্যাল নথিপত্র সংরক্ষণ করত। কিন্তু বর্তমানে সরকারের এমডিজি লক্ষ্যমাত্রার অংশ হিসেবে ডিজিটাল আরকাইভস করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস ইতোমধ্যে সনাতনী নথিপত্র/পুরাতন নথিপত্র ডিজিটাইজেশন করার কার্যক্রম চালু রযেছে।